শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
সাভারে গ্রিল কেটে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, নগদ টাকাসহ স্বর্ণলঙ্কার লুট উত্তরা পাবলিক লাইব্রেরির উদ্যোগে ‘গর্বিত বাবা সম্মাননা-২০২৪’ প্রদান সাহারা খাতুনের কবর জিয়ারতে দোয়া-মোনাজাত-ফুলেল শ্রদ্ধা দ্রুত পণ্য খালাস আইন বাতিলের দাবিতে কাস্টমস এজেন্টসদের বিক্ষোভ মিছিল ১০ হাজার কর্মী নিয়ে আ.লীগের ‘প্লাটিনাম জয়ন্তী’তে খসরু চৌধুরী, এমপি উত্তরায় স্বাচিপ কমিটির উদ্যোগে আ.লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপন উত্তরায় হাট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের যা বললেন ডিসি শাহজাহান দিয়াবাড়ি হাটে পিকআপ থেকে চাঁদা আদায়কালে আটক ৩ দিয়াবাড়িতে রাস্তার উপর হাটের পশু! জোর করে হাটে গরু নেয়ার চেষ্টা; ছবি তোলায় সাংবাদিকের উপর হামলা

উত্তরায় ওয়ার্ডবয় দিয়ে হার্টের ‘ইটিটি’ করানোর অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদক| জি.এম.টি
  • আপডেট টাইম: বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ২২০ বার পঠিত

রাজধানীর উত্তরায় ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ওয়ার্ডবয় দিয়ে এক রোগীর হৃদপিণ্ডের এক্সারসাইজ টলারেন্স টেস্ট (ইটিটি) করানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী ওই রোগীর নাম শরীফুল ইসলাম চৌধুরী।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ, হার্টে সমস্যা দেখা দেওয়ায় গত মঙ্গলবার রাতে উত্তরা ১৩ নম্বর সেক্টরের ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভবন-২ এ হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক ডা. আবুল খায়েরের কাছে যান। চিকিৎসক তাকে হার্টের ইটিটি পরীক্ষা দিলে রাত ১০টার পর ওই হাসপাতালের ১নং ভবনের ৩০৭নং কক্ষে পরীক্ষাটি করান তিনি।

তবে ওই রোগীর দাবি, ইটিটি করানোর সময় কোনো বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ল্যাবে উপস্থিত ছিলেন না। বরং ল্যাবে থাকা নীল রঙের ড্রেস পরা ওয়ার্ডবয় তার ও তার স্ত্রীর কাছ থেকে বনসই রেখে ওয়ার্ডবয় নিজেই ইটিটি করেন।

এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী শরীফুল ইসলাম চৌধুরী হাসপাতালে রিপোর্ট নিতে এসে বিষয়টি বুঝতে পেরে ৯৯৯-এ কল দিয়ে পুলিশকে জানায়। রাত সাড়ে ৯টার দিকে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে । এ সময় এসআই নসিবুল ইসলামের উপস্থিতিতে ওই ভুক্তভোগী ইটিটি করানোর সময় রুমে ডাক্তার না থাকার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করলে ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক কর্তৃপক্ষ তেমন কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি।

ভুক্তভোগীর দাবি, ইটিটি ৮৪ শতাংশ হওয়ার পর আমার খুব অস্বস্তি লাগছিল। পানি খেতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু কোনো ডাক্তারকে দেখিনি। এর পর তাড়াহুড়ো করে উপস্থিত নার্স ও শুরুর ওই ওয়ার্ডবয়ই যন্ত্রপাতি খুলে ফেলে।

ভুক্তভোগীর স্ত্রী সাবরিনা জানান, ওই ওয়ার্ডবয় আমাদের বলে— ইটিটি করানোর সময় যদি রোগীর কোনো দুর্ঘটনা ঘটে, সেটির জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। এই বলে সে আমার ও আমার স্বামীর বনসই নিয়েছে। এমন একটা জীবন-মরণের মতো পরীক্ষা করাবে অথচ কোনো ডাক্তার থাকবে না— এর চেয়ে বড় অবহেলা আর কি হতে পারে? আমরা অবশ্যই এ ঘটনায় জড়িত সবার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের উত্তরা শাখার ম্যানেজার মো. জাকির হোসেন বলেন, ওই সময় দায়িত্বে সহযোগী অধ্যাপক ডা. আমিনুর রাজ্জাক থাকার কথা। যদি ইটিটির সময় তিনি উপস্থিত না থাকেন, তবে সেটা অবশ্যই অবহেলা। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।

এদিকে অভিযুক্ত সহযোগী অধ্যাপক ডা. আমিনুর রাজ্জাকের কাছে মুঠোফোনে অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে যুগান্তরকে তিনি বলেন, আমি পাশের ইসিজি রুমে ছিলাম। তবে ওই রোগীর ইটিটি করানোর সময় ইটিটি কক্ষে ছিলেন কিনা? এ বিষয়ে যুগান্তরকে তিনি তেমন কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

  • Print
  • উত্তরা নিউজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন:
এ জাতীয় আরো খবর..
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩-২০২৩
themesba-lates1749691102