শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ১১:৫২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
সাভারে গ্রিল কেটে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, নগদ টাকাসহ স্বর্ণলঙ্কার লুট উত্তরা পাবলিক লাইব্রেরির উদ্যোগে ‘গর্বিত বাবা সম্মাননা-২০২৪’ প্রদান সাহারা খাতুনের কবর জিয়ারতে দোয়া-মোনাজাত-ফুলেল শ্রদ্ধা দ্রুত পণ্য খালাস আইন বাতিলের দাবিতে কাস্টমস এজেন্টসদের বিক্ষোভ মিছিল ১০ হাজার কর্মী নিয়ে আ.লীগের ‘প্লাটিনাম জয়ন্তী’তে খসরু চৌধুরী, এমপি উত্তরায় স্বাচিপ কমিটির উদ্যোগে আ.লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপন উত্তরায় হাট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের যা বললেন ডিসি শাহজাহান দিয়াবাড়ি হাটে পিকআপ থেকে চাঁদা আদায়কালে আটক ৩ দিয়াবাড়িতে রাস্তার উপর হাটের পশু! জোর করে হাটে গরু নেয়ার চেষ্টা; ছবি তোলায় সাংবাদিকের উপর হামলা

সাহারা খাতুনের কবর জিয়ারতে দোয়া-মোনাজাত-ফুলেল শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম: মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০২৪
  • ৩১ বার পঠিত

সাবেক স্বরাষ্ট্র ও ডাক-টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী, ঢাকা-১৮ আসনের সাবেক সাংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রয়াত প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকীতে তার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়েছে।

আজ (৯ জুলাই) ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল ১০টায় বনানী কবরস্থানে সাহার খাতুনের কবরে ঢাকা-১৮ আসনের এমপি মো. খসরু চৌধুরীর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান, সদস্য কাজী সালাউদ্দিন পিন্টু, তুরাগ থানা আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল ইসলাম সুরুজ, উত্তরখান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মিলনসহ ঢাকা-১৮ আসনের বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনকে স্মরণ করে ঢাকা-১৮ আসনের এমপি মো. খসরু চৌধুরী বলেন, বর্ণাঢ্য এক রাজনৈতিক জীবন ছিলো অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের। মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে দেশের সব গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে ছিল তার সরব উপস্থিতি। শামিল ছিলেন বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা হত্যার প্রতিবাদেও। প্রতিষ্ঠা করেন আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ। দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার কৃতিত্বও তার। দায়িত্ব পালন করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী হিসেবেও। আজীবন লালন করেছেন বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ।

সাহার খাতুনের জন্ম ১৯৪৩ সালের ১লা মার্চ ঢাকার কুর্মিটোলায়। রাজনীতির শুরু স্কুল থেকেই। ১৯৬১ সালে ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে। আইন ছাত্রদের মধ্যে একটি নির্বাচনে তিনি ছাত্রলীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে জয় লাভ করেন। ১৯৬৯ সালে গঠিত বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ ভাষনের সময় সশরীরে ছিলেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। ভুমিকা রাখেন মহান মুক্তিযুদ্ধে।

আইনজীবী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও রাজনীতিতে আরো বেশী সক্রিয় হন সাহারা খাতুন। আইনজীবীদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ। বঙ্গবন্ধুর হত্যা পর আওয়ামী লীগের সঙ্গে বন্ধুর পথ পাড়ি দিতে সাহারা খাতুনকেও। কিন্তু কখনই বিচ্যুত হননি আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে। ২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় শেখ হাসিনা গ্রেফতার হলে অনেকটা ছায়ার মতো অনুসরণ করেন দলীয় প্রধানকে। আইনী লড়াই চালান মুক্তির আগ পর্যন্ত।

২০০৮ নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৮ আসন থেকে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সাহারা খাতুন। দায়িত্ব পালন করেন দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে। পরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সাহারা খাতুন। ২০১৪ সালের দশম সংসদ এবং ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

  • Print
  • উত্তরা নিউজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন:
এ জাতীয় আরো খবর..
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩-২০২৩
themesba-lates1749691102