sappppppp

সাপ দেখলে ভয় পায় না, এমন মানুষ খুব কম আছে৷ কিন্তু ইন্দোনেশিয়ার এই ছবিগুলো দেখলে মনে হতে পারে, সাপদের কাছে মানুষও কিছু কম ভয়ের নয়৷ এখানে সাপের চামড়া প্রস্তুত করা হয়৷ (সতর্কতা: কিছু ছবি ভীতিকর মনে হতে পারে)৷

কসাইখানা

পশ্চিম জাভার একটি সাপ মারার কারখানায় কর্মীরা সাপগুলোকে পরিষ্কার করছেন৷ সাপের মাংস শুকিয়ে, পরে চীন আর তাইওয়ানে রপ্তানি করা হয়, যেখানে সাপের মাংস খাবার এবং ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়৷

Indonesien Produktion Schlangenleder (Getty Images/AFP/A. Rochman)

গ্ল্যামারের জন্য

পশ্চিমে সাপের চামড়াকে গ্ল্যামারাস মনে করা হয়৷ ছবিতে পূর্ব জাভায় এক কর্মী একটি পাইথনের চামড়া ছাড়ানোর তোড়জোড় করছেন৷

Indonesien Produktion Schlangenleder (picture-alliance/dpa/NurPhoto/D. Roszandi)

বিশ্বের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক

ইন্দোনেশিয়া সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সাপের চামড়া রপ্তানি করে থাকে৷ বলা হয়, এসব সাপ ‘মানবিকভাবে’ পোষা হয়ে থাকে, কিন্তু বাস্তব বোধহয় কিছুটা আলাদা৷

Indonesien Produktion Schlangenleder (picture-alliance/dpa/NurPhoto/D. Roszandi)

চাহিদা

দুনিয়া জুড়ে সাপের চামড়ার চাহিদা দেখে ইন্দোনেশিয়ায় সর্পশিকারীরা স্বভাবতই আরো উৎসাহ পেয়েছে৷

Indonesien Produktion Schlangenleder (picture-alliance/dpa/NurPhoto/D. Roszandi)

সাপ থেকে চামড়া হওয়ার পথে

খোলা সাপের চামড়াগুলি পরিষ্কার করার পর গোল করে শুকাতে দেওয়া হয়েছে৷

Indonesien Produktion Schlangenleder (picture-alliance/dpa/NurPhoto/D. Roszandi)

শুকানো

সাপের চামড়া প্রথমে জলে ভিজিয়ে রেখে পরে রোদে শুকানো হয়৷ তবে চুল্লিতেও শুকানো যেতে পারে৷

 



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / আ/ম

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা