sagar-ramgonj-lakshmipur

লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার ৪ নং ইছাপুর ইউনিয়নের সোন্দরা গ্রামের শারিরিক প্রতিবন্ধী সাগর বাদশা (আনুমানিক ৪১)। জন্মলগ্ন থেকেই শারিরিক প্রতিবন্ধী বিধায় ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে জন্মদাতার পিতা একটি বারের জন্য সাগর বাদশাকে দেখতে আসেনি। আর তাই নানা বাড়ি লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জেই তার বেড়ে ওঠা। সাগর বাদশার বাবার বাড়ী চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ শহরে। তথ্য নিয়ে জানা যায়, সাগর বাদশা যখন জন্ম নেয়, তখন তার বাবা জানতে পারে যে, ছেলে শারিরীক প্রতিবন্ধি। সে থেকে পিতাও আর কোনদিনই খোঁজ নিতে আসেননি। ভাগ্য যখন এই, তখন নানা বাড়িতেই জন্মদাত্রী মায়ের কোলেই সংগ্রামের সাথে বেড়ে ওঠেন দু হাত আর দুপায়ে ভর দিয়ে চলা প্রতিবন্ধী সাগর বাদশা। বর্তমানে তিনি জীবনের অনেকগুলো সময় অতিবাহিত করেছেন। বিয়েও করেছেন, আছে ছেলে সন্তানও।


সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা যায়, পরিবারের জীবিকা নির্বাহের জন্য সাগর বাদশা স্থানীয়দের সহযোগিতায় একটি চায়ের দোকান দিয়ে সংসার চালানোর দায়িত্ব নিয়েছেন। যেখানে প্রতিবন্ধি সাগর বাদশার চেয়েও অনেকটা স্বাভাবিক প্রতিবন্ধিরা ভিক্ষার থালা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন ভিক্ষাবৃত্তিতে, সেখানে সাগর বাদশা ভিক্ষা নয় বরং পরিশ্রম করে পরিবারের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এই শারিরীক প্রতিবন্ধী।


সম্প্রতি প্রতিবন্ধী সাগর বাদশার খোঁজ নিতে যান রামগঞ্জ থানার ‘মানবতার ফেরিওয়ালা’ খ্যাত পুলিশ অফিসার জহির উদ্দিন। সেখানে তিনি তুলে ধরেন সাগর বাদশার শারিরীক ও পারিবারিক অবস্থা। জানা যায়, সাগর বাদশার এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। নিজ কর্মে স্ত্রী’র সহযোগিতায় বড় ছেলে সপ্তম শ্রেণিতে, মেজো মেয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে এবং সর্বকনিষ্ঠ মেয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়াও পরিবারের সদস্য হিসেবে রয়েছেন গর্ভধারণী ‘মা’।


বর্তমানে পরিবারটি অর্থনৈতিক সমস্যায় জর্জরিত জানিয়ে সমাজের সকলের সহযোগিতা চান সাগর বাদশা। তারই প্রেক্ষিতে রামগঞ্জ থানার এস আই জহির উদ্দিন পরিবারটির পাশে এগিয়ে আসার জন্য সমাজের সবাইকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।


উল্লেখ্য যে, গত কয়েক বছর ধরে অসহায়, দরিদ্র ও সহায়-সম্বলহীন মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সমাজের স্বচ্ছল মানুষদের আহ্বান জানিয়ে এসব গরীব-দুখী মানুষদের সহযোগিতায় কাজ করে যাচ্ছেন রামগঞ্জ থানার এস আই মোঃ জহির উদ্দীন। তারই ধারাবাহিকতায় নিজ কর্ম এলাকার এই অসহায় পরিবারটির কল্যাণে সবাইকে এগিয়ে আসার জন্য বিশেষ অনুরোধ জানান।


এ নিয়ে গত ১৯ অক্টোবর এস আই জহির উদ্দীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর শুভাকাঙ্খীদের উদ্দেশ্য করে সাগর বাদশার উপর নির্মিত একটি ডকুমেন্টারি প্রকাশ করে এবং লিখেন-
লক্ষীপুর রামগঞ্জ উপজেলার,ইছাপুর ইউনিয়নের সোন্দরা গ্রামের, হত দরিদ্র প্রতিবন্ধী সাগর বাদশার দোকান ঘর নির্মানের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যারা এই প্রতিবন্ধী পরিবারকে সহযোগিতা করতে চান (বিকাশ নাম্বার- ০১৭১৭৫০৩০১০)এর মাধ্যমে সহযোগিতা করার অনুরোধ করা হইল। মানবিক ও ভালো কাজে এগিয়ে আসুন।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান (রামগঞ্জ, লক্ষীপুর)

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা