tarana-un24

সরকার গুজব সনাক্তে ৯ সদস্যের একটি সেল গঠন করেছে। সেলের প্রধান করা হয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মিজানুর রহমানকে।

 

মঙ্গলবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে গুজব সনাক্তকরণ সেলের (Rumor Monitoring Cell) কার্যক্রম নির্ধারণ ও সহযোগিতা কার্যকর বিষয়ক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এ তথ্য জানান।

পরে প্রতিমন্ত্রী পরিবর্তন ডটকমকে জানান, সেলের বাকি সদস্যদের নাম এখনো ঠিক হয়নি। দ্রুতই তা করা হবে। এরপর সংবাদমাধ্যমকে জানানো হবে।

সভায় তিনি বলেন, ‘তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে এই সেল নিয়মিত সোশ্যাল মিডিয়া পর্যবেক্ষণ করবে। শুধুমাত্র কোনটা গুজব, সে তথ্য দেবে। গুজবে মানুষ যেন বিভ্রান্ত না হন, সেজন্য দ্রুততার সঙ্গে কাজটি করা হবে।’

তারানা হালিম বলেন, ‘আইনের আশ্রয় নেয়া আমাদের কাজ নয়, মামলা করাও নয়। আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়াও আমাদের এখতিয়ারবহির্ভূত। এই সেলের কাজই হবে, গুজব সনাক্ত করে তথ্য দেয়া।’

এই সেল কি আজ থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করল— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কাজ আসলে আগেই ইনফর্মালি শুরু হয়েছে। কিন্তু, আমরা যেভাবে চাচ্ছি, সেভাবে করতে হলে আরেকটু মনোযোগ দিয়ে এগোতো হবে। আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা যেদিন প্রথম গুজব সম্পর্কে জানাতে পারব, সেদিন থেকেই আমরা মনে করব সফলতার পথে পা দিয়েছি। তার আগ পর্যন্ত আমি বলতে চাই না, আমরা কাজ শুরু করেছি।’

জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে গুজব ঠেকাতে এই সেল গঠন কিনা— এমন প্রশ্নর জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘না, তেমনটি না। গুজবের বিরুদ্ধে কেউ কাজ করছে না তা কিন্তু নয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট আগে থেকেই সরাসরি কাজ করছে। এ-টু-আই তাদের মতো করে কাজ করছে। আমার মনে হয়েছে, তথ্য মন্ত্রণালয়েরও এতে সম্পৃক্ত হওয়া প্রয়োজন। তথ্য মন্ত্রণালয় সব তথ্যের উৎস, আমরা তথ্য বিতরণও করব। তাহলে কেন এখানে তথ্য মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা থাকবে না? মূলত এ ভাবনা থেকেই সম্পৃক্ত হচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘কোন গুজব অনলাইনে ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে, রাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলছে, অসত্য তথ্য দিয়ে কোন আন্দোলন উস্কে দেয়া হচ্ছে, এ ধরনের গুজবগুলো আমরা সনাক্ত করব। এ কাজে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বিভাগগুলো আমাদের সহযোগিতা করবে।’

তারানা হালিম বলেন, ‘একেবারে প্রত্যন্ত অঞ্চলে যে গুজবগুলো ছড়ায়, সেসব এলাকার ওসিদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি দেয়া হবে। সেগুলো গুজব কিনা তথ্য মন্ত্রণালয়ে ফোকাল পয়েন্ট তাদের সঙ্গে যোগাযোগ ও দ্রুততার সঙ্গে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবে। এরপর সেটি গুজব না হলে আমাদের কোনো কাজ থাকবে না। গুজব হলেই আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাব, এটি গুজব।’



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / জি/তা

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা