sakib

পদত্যাগের পর অবশেষে বিসিবির মুখোমুখি হয়ে মুখ খুললেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। এ সময় তিনি তাঁর পদত্যাগের বেশ কিছু কারণ জানালেন।

আর বাংলাদেশকে দেওয়ার কিছু নেই মনে করেই ছেড়েছেন কোচের দায়িত্ব।

 বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের বিশেষ করে, সিনিয়র ক্রিকেটারদের আচরণে অসন্তুষ্ট হাথুরুসিংহে। তাদের আচরণ এবং মানসিকতা তার ভাল লাগেনি। যা নিয়ে তিনি রীতিমত অসন্তুষ্ট। বিশেষ করে সাকিব আল হাসানের মত অতি নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে না গিয়ে বিশ্রামে কাটাবে- এটা নাকি হাথুরু মোটেই মেনে নিতে পারেননি। তার কাছে সাকিবের আচরণ ও বিশ্রাম নেওয়ার সিদ্ধান্তটাকে দেশের চেয়ে ব্যক্তি স্বার্থ বড় করে দেখার মতই মনে হয়েছে।

আজ শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর এক হোটেলে হাথুরুসিংহের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান সংবাদ মাধ্যমকে একথা বলেন।

হাথুরুর সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয় সম্পর্কে পাপন বলেন, আমার ব্যাপারটা ছিল একেবারেই সৌজন্য সাক্ষাৎ। যেহেতু বাংলাদেশে এসেছে, সেও চাচ্ছিল আমার সাথে দেখা করতে।

তারপর ভাবলাম, ঠিক আছে এতদিন ছিল আমাদের সাথে একবার দেখা করাই উচিত। সে কারণেই একটা সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য এসেছিলাম।

 শ্রীলঙ্কান কোচের সঙ্গে কথা বলার পর নাজমুলের উপলব্ধি, যতই ভালো খেলোয়াড় হোক, তাদের একটা জিনিস বুঝতে হবে, তার চেয়ে দেশ অনেক বড়। একজনের সঙ্গে আরেকজনের ব্যক্তিগত সমস্যা থাকতেই পারে। কিন্তু তাতে দেশের ক্ষতি করা যাবে না। এই জিনিসটা প্রতিটি খেলোয়াড়ের ভেতর যদি আমরা পৌঁছে দিতে পারি বা বোঝাতে পারি, তবে দল অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

বিসিবি সভাপতির শেষ কথাগুলোতে আছে বড় ইঙ্গিত। তার মানে ক্রিকেটারদের কারো কারো সম্পর্কে নিশ্চয়ই বড় ধরননের অভিযোগ ও নেতিবাচক রিপোর্ট দিয়ে যাবেন হাথুরু।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা