pakistan

প্রতিবেদনে বলা হয়, সংঘর্ষে নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত ৬৫ জন আহত হয়েছেন। আহত সবাইকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বিক্ষোভকারীরা জানান তাদের অন্তত ৪ জন নিহত হয়েছেন। তবে নিহতের ঘটনা অস্বীকার করছে পুলিশ।

 

টেলিভিশনের প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায়, গাড়িতে আগুন জ্বলছে। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলছে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে।

পাকিস্তানের আইনমন্ত্রীর অপসারণের দাবিতে গত দু’সপ্তাহ ধরেই রাজধানী ইসলামাবাদের মূল রাস্তাগুলি অবরোধ করে রেখেছেন তেহরিক-ই-লাবাইকের কর্মী ও সমর্থকরা। শনিবার সকালে পুলিশ তা তোলার চেষ্টা শুরু করতেই সংঘর্ষের সূত্রপাত। এ দিন পাক আইনমন্ত্রীর বাড়ির একাংশ ভাঙচুর করেন বিক্ষোভকারীরা।

রাতের মধ্যে এই আন্দোলন অন্য শহরগুলোতে ছড়িয়ে ফেলে। বেসরকারি টেলিভিশনগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিছু স্থানে বন্ধ রয়েছে ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউবও। তবে আন্দোলনকারীরা দাবিতে অনড় বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। তেহরিক ই লাবাইকের মুখপাত্র এজাজ আশরাফি বলেন, ‘আমরা হাজার হাজার মানুষ ফিরে যাবো না। শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবো।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, আইনমন্ত্রীর বাড়ি ভাঙার সময় তার পরিবার সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। নিজের বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন আইনমন্ত্রী। 



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা