turag

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) তুরাগ থানার ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হিসেবে ইতি মধ্যে প্রচার- প্রচারনা শুরু করে দিয়েছেন তুরাগ থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন।
তিনি বলেন, আগামী দিনে নিজের জীবন বাজী রেখে হলেও আমার নির্বাচনী ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডকে একটি আধুনিক ও মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আমি জনগনের কল্যাণে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাবো। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের পাশে থেকে তাদের সুখ, দু:খে সেবা করতে চাই। অধীক জনবহুল, ঘনবসতিপূর্ণ ও ব্যস্ততম এলাকার নাম রাজধানীর তুরাগ থানার হরিরামপুর ইউনিয়ন পরিষদ। আমার আগামী দিনে ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডবাসির জন্য এই হোক আমার সমাজ ও দেশ গড়ার অঙ্গীকার।
আজ মঙ্গলবার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ’’ ও জাতীয় সাপ্তাহিক উত্তরা নিউজের সাথে’’ একান্ত স্বাক্ষাতকারে ডিএনসিসি’র ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও তুরাগ থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়ামের অন্যতম প্রভাবশালী সদস্য সাবেক স্বরাষ্ট্র, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী এবং ঢাকা-১৮ আসনের সর্বস্তরের মানুষের প্রাণ, সফল ব্যক্তিত্ব এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন (এমপি) সার্বিক সহযোগিতায় আমরা উন্নয়নের ধারপ্রান্তে এসে পৌছাতে পেরেছি।


আমার ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের উন্নয়নের একটি মাইলফলক হিসেবে জনগনের সামনে ধারাবাহীক উন্নয়নের এর ধারা আগামী দিনে অব্যাহত রাখতে পারবো বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন।
মুষলধারে বৃষ্টিপাত হলে জলাবদ্বতার সৃষ্টি সহ আমার ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা এবং বাসা বাড়িতে পানি উঠে যায়। তখন শিশু, মহিলা ও শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়। আমি জনগনের ভোটে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হলে সবার আগে এসব সমস্যা সমাধান করার হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।
আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন আরো বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও মাদক দেশও জাতির শত্রু। বর্তমান সরকার কঠোর হস্তে এগুলো দমন করার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাচেছন। আগামী দিনে আসন্ন ডিএনসিসির কাউন্সিলর নির্বাচনকে সামনে রেখে আমার নির্বাচনী ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডবাসির উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করতে চাই। সবাইকে পাশে রাখতে চাই। সকলে মিলে মিলে এলাকার উন্নয়নের জন্য কাজ ও সেবা করতে চাই। আমি আপনাদের পাশে আছি, ছিলাম এবং ভবিষ্যতে ও থাকবো।
তুরাগ বাসির উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে তিনি আরো বলেন, তুরাগের রাস্তাঘাট, কালবার্ট, ব্রিজ, মসজিদ, মাদ্রাসা, সরকারী স্কুল কলেজ, সরকারী হাসপাতাল ও ড্রেনের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আরো উন্নয়ন করা হবে এবং উন্নয়নের ধারা পর্যায়ক্রমে অব্যাহত থাকবে।
রাজনৈতিক ও পারিবারিক জীবন প্রসঙ্গ তুলে ধরে কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, আমি ১৯৫৯ সালে তুরাগের হরিরামপুর ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামে এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহন করি। আমার ছোট ভাই মো: নাসির উদ্দিন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও টঙ্গী সরকারী কলেজে ছাত্রলীগের ক্রীড়া ও সাংস্কুতিক সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া আমার ছোট ভাই মো: জসিম উদ্দিন ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের অন্যতম প্রভাবশালী নেতা ছিলেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন সবার বড়।
তিনি আরো বলেন, আমার পরিবার হলো রাজনৈতিক দলের পরিবার। আমার পরিবারের সকলে আওয়ামীলীগ রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে জড়িত । বর্তমানে আমি তুরাগ থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়ে দলের জন্য সততা ও নিষ্টার সাথে কাজ করে যাচিছ। আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি’র) ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হিসেবে প্রচার ও প্রচারনা চালাচিছ।
রাজনীতিতে আসার কারণ ও রাজনৈতিক গুরু প্রসঙ্গে উল্লেখ করে আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার আদর্শকে মনেপ্রাণে ভালবেসে জন্মলগ্ন থেকে আওয়ামীলীগ কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছি।
তিনি বলেন, আমার রাজনীতিতে আসার পর্দারপণ, রাজনৈতিক হাড়েগড়ি শুরু হয় বীরমুক্তিযোদ্বা মো: আবুল হাসিম চেয়ারম্যানের হাত ধরে। তিনি একজন তৃণমূল পর্যায়ের রাজনৈতিক নেতা। তিনি আমার (রাজনৈতিক গুরু)। তার আদর্শ ও কর্মকান্ডকে মনেপ্রানে ভালবেসে রাজণীতিতে আমার আগমন হয়।
তিনি বলেন, এছাড়া আমি ফুলবাড়িয়া বাইতুল ফালা জামে মসজিদের দাতা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। পাশাপাশি বিভিন্ন স্কুল কলেজ, মসজিদ মাদ্রাসা, এতিমখানা সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত আছি।
৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের জনগনের উদ্দেশ্যে আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, ঢাকা-১৮ আসনের সর্বস্তরেরর মানুষের প্রাণপ্রিয় নেত্রী এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন (এমপি)র নির্দেশে আমরা দলের সবাই একত্রিত হয়ে কাজ করছি। দলের মধ্যে কোন ধরনের বিরোধ নেই। আমরা সকলের নৌকার পক্ষে শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচিছ।
তিনি আরো বলেন, তুরাগ থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, আসন্ন ডিএনসিসি (উত্তর) এর ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে আমি একজন প্রার্থী হয়েছি। দল থেকে যদি আমাকে কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয় তাহলে অবশ্যই আমি নির্বাচনে প্রদিদ্বন্ধিতা করবো। এতে কোন সন্দেহ নেই।
তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের রূপকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ও আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য এবং ঢাকা-১৮ আসনের (এমপি) এডভোকেট সাহারা খাতুনের কোন বিকল্প নেই।
আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচছাসেবকলীগ, জাতীয় শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগ, মুক্তিযোদ্বা প্রজন্মলীগ, তরুনলীগ, বাস্তহারালীগ ,মহিলা যুবলীগ ও মহিলালীগ সহ সহযোগী অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা আমার সাথে আছে। আগামী দিনে ঢাকা-১৮ আসনের এমপি এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের হাতকে বেগমান ও আরো শক্তিশালী করতে তুরাগ ও হরিরামপুর ইউনিয়নের সকল স্তরের নেতাকর্মী ও মানুষকে ঐক্যবদ্ব হতে হবে। এই হোক আমার আগামী দিনে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কণ্যা বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার দেশ গড়ার দৃঢ প্রত্যয়।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, বর্তমান সরকারের শাসনামলে সারা দেশের ন্যায় তুরাগ থানা এলাকায় পরিমান উন্নয়ন হয়েছে অতীতে আর কোন সরকারের আমলে সেটি হয়নি। বর্তমান সরকার হলো উন্নযনের সরকার। জাতির জনকের কণ্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচেছ, এগিয়ে যাবে।
দেশের পদ্মাসেতু, ফ্লাইওভার ও মেট্রোরেল প্রসঙ্গে আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, দেশীয় টাকা দিয়ে সরকার পদ্মা সেতু নির্মান করছেন। বিদেশী অর্থায়নে নয়। এটা সত্যিকারে গোটা বাঙ্গালী জাতির গর্ব। এছাড়া ফ্লাইওভার ও মেট্রোরেল তৈরী করছেন সরকার। অতীতে আর কোন সরকার তার করতে পারেনি। সেজন্য আমি বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাচিছ।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / এস. এম. মনির হোসেন জীবন

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা