4-criminal-arrested-by-rab-11-uttara-uttaranews24.com

দক্ষিণখানের আশকোনা এলাকা থেকে বন্যপ্রাণী পাচারকারী চক্রের ৪জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে এলিট ফোর্স র‌্যাব-১১ এর একটি দল। আটককৃতরা হলো- জাহিদুল হাসান (৩২), খন্দকার বুলবুল ইসলাম (৩৪), রফিকুল ইসলাম (৪১) ও মাসুদুর রহমান (২৯)। এ সময় পাচারকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বিরল প্রজাতির দুইটি টোকান ও একটি ইকলেকটাস প্যারোট পাখি। র‌্যাবের আইন ও গনমাধ্যম (মিডিয়া) শাখার সিনিয়র এএসপি মো: মিজানুর রহমান ভুঁইয়া আজ সোমবার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জসিমউদ্দীন চৌধুরীর সোমবার জানান, শনিবার বিকেল ৫টার দিকে রাজধানীর দক্ষিনখানের আশকোনা এলাকায় র‌্যাব-১১ সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায়। এসময় র‌্যাব-১১ এর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে বন্যপ্রাণী পাচারকারী চক্রের ৪জন সক্রিয় সদস্য জাহিদুল হাসান (৩২), খন্দকার বুলবুল ইসলাম (৩৪), রফিকুল ইসলাম (৪১) ও মাসুদুর রহমান (২৯)। কে গ্রেফতার করে।


আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে পাচারকারী চক্রটি বিদেশ থেকে পশুপাখি আমদানির আড়ালে বিমানবন্দরের সিঅ্যান্ডএফের সঙ্গে সংঘবদ্ধভাবে আমদানি নিষিদ্ধ বিরল প্রজাতির পশুপাখি আমদানি করে আসছে। এসব পশুপাখি প্রতবেশী দেশগুলোতে পাচার করা হয়।


র‌্যাব-১১ সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ৮ মে যশোর থেকে উদ্ধার করা ৯টি জেব্রা আটক রফিকের পরিচালিত সিঅ্যান্ডএফ ‘মতিন অ্যান্ড কোং’ এর মাধ্যমে বিমানবন্দর থেকে ছাড় করা হয়েছিল। এই চক্রটি বিভিন্ন সময় সাদা সিংহ, বিদেশি বানর, চিতা বাঘ, জেব্রাসহ বিরল প্রজাতির পাখি আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকা ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে কৌশলে বাংলাদেশে আনে এবং পাশের দেশগুলোতে পাচার করে।


র‌্যাব আরো জানায়, চলতি বছরের ১৪ জুন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় দুইটি চিতা বাঘসহ আন্তর্জাতিক বন্যপ্রাণী পাচারচক্রের সদস্য আরিফুল ইসলাম ও শওকত ইমরান ওরফে মিঠুকে গ্রেফতার করা হয়।পরবতীতে উদ্ধার করা বিরল প্রজাতির আমদানি নিষিদ্ধ টোকান পাখি ও ইকলেকটাস প্যারোট পাখি বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ইউনিটের কর্মকর্তার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক গাজীপুরে সংরক্ষণের জন্য হস্তান্তর করা হয়েছে।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / এস.এম.মনির হোসেন জীবন

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা