ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন প

ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশের এক সহকারী উপ-পরিদর্শককে (এএসআই)কে ৩ পিস সোনার বার সহ আটক করেছে ঢাকা কাস্টমস হাউজের কর্মকর্তারা। আটককৃত ওই এএসআইয়ের তার নাম কামরুল ইসলাম। ১০ তোলা (১১৬) মোট ৩৪৮ গ্রাম ওজনের ৩ পিস বার উদ্বার করা হয়। যার মধ্যে প্রায় ২৪ থেকে ২৫ ভরি রয়েছে। জব্দকৃত সোনার বাজার মূল্য প্রায় ১৫ লাখ টাকা।
গতকাল সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিমানবন্দরের দ্বিতীয় তলার ৬ নম্বর গেইটে এ ঘটনা ঘটে।
বিমানবন্দর সূত্র ও ঢাকা কাস্টম হাউসের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে আজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
বিমানবন্দর সূত্র ও ঢাকা কাস্টম হাউস সুত্রে জানা যায়, আজ সোমবার ইমিগ্রেশন পুলিশের (এএসআই) কামরুল ইসলামের শাহজালাল বিমানবন্দরে কোন ডিউটি ছিলো না। তিনি গতকাল সন্ধ্যায় শাহজালাল বিমানবন্দরে এসেছিলেন। সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ঢাকা কাস্টমস হাউজের কর্মকর্তারা বিমানবন্দরের দ্বিতীয় তলার ৬ নম্বর গেইট দিয়ে বাহিরে বের হবার সময় এএসআই কামরুল ইসলামকে সন্দেহজনক অবস্থায় চ্যালেঞ্জ করা হয়। তখন সে কৌশলে পালানোর চেষ্টা চালায়। পরে কাস্টমস কর্মকর্তারা তাকে আটক করে এবং পরবর্তীতে তার কাছ থেকে ১০ তোলা (১১৬ গ্রাম) ওজনের ৩ পিস সোনার বার সহ আটক করে। আটককৃত সোনা প্রায় ২৪ থেকে ২৫ ভরি। জব্দকৃত সোনার বাজার মূল্য প্রায় ১৫ লাখ টাকা।
বিমানবন্দরের একটি সুত্র রাতে আরো জানান, আটককৃত এএসআই কামরুল ইসলামের বিরুদ্বে স্বর্ণ চোরাচালান আইন কিংবা বিভাগীয় আইনে তার বিরুদ্বে ব্যবস্থা গ্রহন করা হতে পারে।
বিমানবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: নূরে এ আজম মিয়া আজ রাতে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ইমিগ্রেশন পুলিশের এএসআই কামরুল ইসলামকে ৩ পিস সোনার বার সহ আটক করা হয়েছে বলে খবর পেয়েছি। তাকে এখনও পর্যন্ত থানায় সোপর্দ করা হয়নি।
ওসি আরো জানান, এবিষয়ে বিস্তারিত জানতে ঢাকা কাস্টমস হাউজের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বলেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / এস.এম.মনির হোসেন জীবন

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা