rashed

ফেসবুক লাইভে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা মো. রাশেদ খানের বিরুদ্ধে করা মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১০ অক্টোবর দিন ধার্য করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুজ্জামান হিরো এই তারিখ ধার্য করেন।

গতকালই এ মামলার প্রতিবেদনের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের উপপুলিশ পরিদর্শক সজীব উজ জামান প্রতিবেদন দাখিল না করায় নতুন তারিখ ধার্য করা হয়।

ফেসবুক লাইভে প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি করার অভিযোগে গত ১ জুলাই শাহবাগ থানায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক আল নাহিয়ান খান জয় তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলাটি করেন। ওই দিনই রাজধানীর মিরপুর এলাকার একটি বাসা থেকে রাশেদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে গত ঈদের আগে তিনি জামিনে মুক্তি পান।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে কোটা বাতিলের ঘোষণা দেন, যা প্রজ্ঞাপন আকারে জারির অপেক্ষায় ছিল। তা সত্ত্বেও গত ২৭ জুন রাশেদ খান কোটা সংস্কার চাই নামের একটি ফেসবুক গ্রুপ থেকে ভিডিও লাইভে এসে বক্তব্য দেন। সেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে মানহানিকর বক্তব্য ও মিথ্যা তথ্য দেন। এসব মিথ্যা তথ্য ও গুজব ছড়িয়ে পড়লে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটে।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা