krash-lending

ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে ফিরেছেন কিছুদিন আগে। আর তার কয়েক দিন পরেই জিতলেন লাখো ডলারের লটারি। বলতেই হচ্ছে, ভাগ্যে থাকলে ঠেকায় কে?

 

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে বলা হয়েছে এভাবে- মোহাম্মদ বাশের আবদুল খাদার, ৬৩ বছর বয়সি কেরালার এই ব্যক্তি হয়তো পৃথিবীর জীবিত মানুষের মধ্যে সবচেয়ে ভাগ্যবান।

গত সপ্তাহে দুবাই বিমানবন্দরে এমিরেটসের একটি বিমান দুর্ঘটনায় পড়ে জরুরি অবতরণ (ক্রাশ ল্যান্ডিং) করে। তিনি অক্ষত উদ্ধার হন। তবে ক্র্যাশ ল্যান্ডিংয়ের কয়েক মিনিট পরেই বিমানটিতে আগুন ধরে যায়। যদি দেরি হতো, তবে ঘটতে পারতো অন্য রকম কিছু।

সৌভাগ্যক্রমে বিমান দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে ফেরার মাত্র কয়েক দিন যেতে না যেতেই তিনি পেলেন অনেক বড় সুসংবাদ। একটি লটারিতে তিনি জিতেছেন কয়েক মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

গালফ নিউজের তথ্যানুযায়ী, পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ভারতের কেরালার রাজধানী থিরুবানানথাপুরামে আসার জন্য খাদার একটি টিকিট কেনেন। প্রতিবার বাড়িতে আসার আগে র‌্যাফেল ড্রর টিকিট কেনা তার অভ্যাস হয়ে দাঁড়ায়। পুরস্কার পাওয়া এই টিকিট ছিল তার ১৭তম টিকিট।

দুবাইয়ে একটি গাড়ি ব্যবসার কোম্পানিতে চাকরি করেন খাদার। আগামী ডিসেম্বর মাসে তিনি চাকরি থেকে অবসর নেবেন। সারা জীবন চাকরি করে যা করতে পারেননি, এক টিকিটেই তিনি তা করতে পারবেন।

লটারি না ভাগ্য, ভাগ্য না লটারি? এ নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। তবে শেষ কথা দাঁড়ায়, একটি লটারিতে বিজয়ী হন হাতেগোনা কয়েকজন। সবার ভাগ্যে তা জোটে না। একে কি ভাগ্য বলা যায় না?

দুবাই ডিউটি ফ্রি মিলেনিয়াম মিলিয়নিয়ার শীর্ষক এই লটারির ড্র হয় দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। খাদারের টিকিট নম্বর ছিল ০৮৪৫।

খাদার জানিয়েছেন, অবসরের পর লটারির অর্থ নিয়ে তিনি দেশে ফিরে আসবেন। মানুষের জন্য কিছু করতে চান তিনি। তার এক ছেলে ২১ বছর ধরে পক্ষাঘাতে (প্যারালাইসিস) ভুগছেন। জন্মের ১৩ দিনের মাথায় পড়ে গিয়ে তার এ অবস্থা হয়। তাকে নিয়ে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে তাকে। মেয়ের দিতে নিজের কোম্পানি সাহায্য করে, তাদের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

লাখো ডলারের লটারি জিতলেও খাদারের মনের শক্তি উৎসাহব্যঞ্জক। তিনি বলেছেন, যত দিন পারি কাজ করে যাব। কষ্টার্জিত অর্থের চেয়ে বেশি তৃপ্তি কিছুতেই নেই।

উল্লেখ্য, খাদার লটারিতে কত লাখ ডলার জিতেছেন, তা টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে উল্লেখ করা হয়নি।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / আ/ম

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা