অখিল গগৈ

ভারতের বিজেপিশাসিত অসমের কৃষক নেতা অখিল গগৈ বলেছেন, হিন্দু হিন্দু করে জাতির অস্তিত্ব শেষ করে দিতে চাচ্ছে সরকার। গতকাল (রোববার) গুয়াহাটিতে তিনি ওই মন্তব্য করেন।

এদিন গুয়াহাটির কটন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেক্ষাগৃহে আয়োজিত এক সভায়  নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৬-এর বিরুদ্ধে ৬০টির বেশি সংগঠন ও বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৬-এর বিরুদ্ধে সর্বভারতীয় স্তরে আন্দোলন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

ওই সভায় কৃষক নেতা অখিল গগৈ বলেছেন, ‘বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকে হিন্দু হিন্দু করে জাতির অস্তিত্ব শেষ করে দিতে চাচ্ছে সরকার। এই রাজ্যে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে। সেজন্য এখন সমন্বয়ের অসম গড়ে তোলার সময় এসেছে। এজন্য সবাইকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।’

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় নাগারিকরা

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বাতিল না হলে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের সব ধরণের কর্মসূচি বয়কট করার আহ্বান জানিয়েছেন লক্ষীনাথ তামুলি। তিনি এব্যাপারে মন্ত্রী বিধায়ক ও এমপিদেরো বয়কট করার দাবি জানিয়েছেন।

পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলা ওই সভায় একাংশের বক্তারা আগামী ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচন ও ২০২১ সালে অসম বিধানসভা নির্বাচনে কেন্দ্রে ও রাজ্যে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারকে ছুঁড়ে ফেললে তবেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল রোধ করা সম্ভব হবে বলে মত প্রকাশ করেন। তাঁদের মতে বিজেপির হাত থেকে শাসন ক্ষমতা কেড়ে না নিলে ওই বিল রোধ করা সম্ভব হবে না।

বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী হীরেন গোঁহাই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আন্দোলনের ওপরে জোর দিয়েছেন। বিভিন্ন রাজ্যের এমপিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে প্রস্তাবিত ওই বিলের বিরোধিতা করার আহ্বান জানানো হবে বলেও সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে।

অসমে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল, ২০১৬ আইনে পরিণত হলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, শিখ, জৈন ও পার্সি যারা এদেশে আশ্রয় নিয়েছেন তারা নাগরিকত্বের সুবিধা পাবেন।#

সূত্র: পার্সটুডে



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / গাজী/24

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা