afganistan-uttaranews24

যুক্তরাষ্ট্র ১৭ বছর যুদ্ধ করেওহয়েছে বলে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি আমেরিকান বিশ্বাস করে। শনিবার ওয়াশিংটন ভিত্তিক পিউ রিসার্স সেন্টার প্রকাশিত এক জরিপে এ তথ্য পাওয়া গছে।
প্রতিষ্ঠানটি ১৮-২৪ সেপ্টেম্বর এই জরিপ চালায়। এতে দেখা যায়, প্রায় অর্ধেক (৪৯%) প্রাপ্তবয়স্ক আমেরিকান মনে করেন যে আফগানিস্তানে লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রায় এক-তৃতীয়াংশ (৩৫%) মনে করেন বেশিরভাগ লক্ষ্য হাসিল করা গেছে। আর ১৬% বলেন তারা জানেন না যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ নাকি সফল হয়েছে। 


২০০৯ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে চালানো জরিপগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের সফলতা ও ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে বেশিরভাগ উত্তরদাতা বলতেন যে যুক্তরাষ্ট্র সফল হয়েছে। ২০১৪-২০১৫ সালে মার্কিন মিশন নিয়ে মনোভাব নেতিবাচক রূপ নেয়।
চলতি মাসের জরিপে দেখা যায়, আফগান মিশনের লক্ষ্য অর্জন নিয়ে ডেমক্রেটদের চেয়ে রিপাবলিকানরা বেশি আশাবাদি। রিপাবালিকান বা রিপাবলিকানদের প্রতি ঝোঁক রয়েছে এমন অর্ধেক উত্তরদাতা (৪৮%) বলেন যে যুক্তরাষ্ট্র সফল হচ্ছে। ডেমক্রেট ঘরানার উত্তরদাতাদের কাছ থেকে একই ধরনের জবাব পাওয়া যায় প্রতি ১০ জনের মধ্যে তিন জনের কাছ থেকে। তিন বছর আগে বারাক ওবামার শাসনামলে দলীয় দৃষ্টিভঙ্গী ছিলো ঠিক উল্টা: ৪২% ডেমক্রেট ও ২৯% রিপাবলিকান মনে করতো যে যুক্তরাষ্ট্র সফল হয়েছে।


আফগানিস্তান যুক্তরাষ্ট্রের জন্য সবচেয়ে দীর্ঘ যুদ্ধ হয়ে ওঠায় ২০০১ সালের অভিযানটি সঠিক ছিলো কিনা তা নিয়ে মার্কিনীদের মধ্যে মতবিরোধ তীব্র হয়ে উঠছে। ৪৫% বলছে যুক্তরাষ্ট্র সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো, আর ৩৯% বলছে সিদ্ধান্ত ভুল ছিলো। তবে দিন যত যাচ্ছে সিদ্ধান্ত ভুল ছিলো বলে মনে করা মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। ২০০৬ সালে ৬৯% মানুষ মনে করতে সিদ্ধান্ত সঠিক ছিলো। ২০০২ সালের শুরুতে এই জবাব পাওয়া যায় ৮৩% মার্কিনীর কাছ থেকে।


আফগানিস্তানে শক্তি প্রয়োগের ব্যাপারে ডেমক্রেটদের থেকে রিপাবলিকানদের কাছ থেকে বেশি সমর্থন পাওয়া যায়। তবে গত এক দশকে দুই দলেই এই মনোভাব কমেছে। এখন দুই তৃতীয়াংশ রিপাবলিকান ও রিপাবলিকানদের প্রতি সহানুভুতিশীল (৬৬%) মনে করে যে আফগানিস্তানে শক্তিপ্রয়োগ সঠিক ছিলো। অন্যদিকে এক-তৃতীয়কাংশ ডেমক্রেটের (৩১%) এই অভিমত। সিদ্ধান্তটি ভুল ছিলো বলে প্রায় অর্ধেক ডেমক্রেট (৫৩%) মনে করলেও এমনটা মনে করেন মাত্র ২১% রিপাবলিকান।

সূত্র: দৈনিক ইনকিলাব



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / জি/তা

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা