usa

নিউ ইয়র্ক শহরের ব্যস্ততম বাস টার্মিনালে 'সন্ত্রাসী আক্রমণের চেষ্টা'র অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। মার্কিন সংবাদ মাধ্যমে আটককৃত ওই ব্যক্তিকে 'বাংলাদেশি অভিবাসী' বলে উল্লেখ করায় সেখানকার বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে উদ্বেগ আর দুশ্চিন্তা ছড়িয়ে পড়েছে।

 নিউ ইয়র্ক টাইমসসহ একাধিক মার্কিন সংবাদ মাধ্যম পুলিশকে উদ্ধৃত করে বলছে, আকায়েদ উল্লাহ একজন বাংলাদেশি অভিবাসী এবং ব্রুকলিন এলাকার বাসিন্দা।

এর পর থেকে সেখানকার বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে উদ্বেগ আর দুশ্চিন্তা ছড়িয়ে পড়েছে। কমিউনিটিতে প্রভাবশালী ইঞ্জিনিয়ার আবু হানিফ এ প্রসঙ্গে বলেন, স্বাভাবিকভাবে পুরো কমিউনিটির মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। যেসব জায়গায় বাংলাদেশিদের বেশি আনাগোনা, বিস্ফোরণের পর সেটি একেবারেই কমে গেছে। এমনকি যাদের বৈধ কাগজপত্র আছে এবং নাগরিকত্বের প্রক্রিয়া শুরু করেছেন তারা ভয় পাচ্ছে। যারা অবৈধ আনডকুমেন্টেড কিন্তু কাগজপত্রের জন্য অ্যাপ্লাই করেছে, তারা সবাই দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছেন। সবার আশঙ্কা তাদের বৈধতার কাগজপত্র তৈরির পথে এ ঘটনার প্রভাব পড়তে পারে।

তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন বিরোধী নীতির মধ্যে এ ধরনের ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই উদ্বেগ তৈরি করে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশি কমিউনিটির সকলেই একবাক্যে বলছেন, হামলাকারী 'বাংলাদেশি অভিবাসী' হলেও সে কিছুতেই বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করে না।

তার শাস্তি হওয়া উচিত বলে মনে করেন কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। 

 মি. হানিফ বলেন, ২০১৩ সালে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভে হামলা চালিয়েছিল ২১ বছর বয়েসী একজন অভিবাসী বাংলাদেশি। তখনো সেখানকার বাংলাদেশিদের উদ্বেগে দিনপার করতে হয়েছে। 
সূত্র : বিবিসি বাংলা



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা