ju-uttaranews

আজ বেলা সাড়ে ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা অনুষদ ভবনে বিভাগ উন্নয়ন ফি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট।

তাদের প্রধান দাবি " বিভাগ উন্নয়ন ফি এর নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায় না করে বিভাগ তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য রাষ্ট্রের কাছ থেকে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে"

উপরোক্ত দাবি নিয়ে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। গতকাল বেলা দুইটায় ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা উপাচার্যের হাতে এ স্মারকলিপি তুলে দেন।
সাথে সাথে তারা বিভাগ উন্নয়ন ফি বাতিলের দাবিতে সংগ্রহ করা বিশ্ববিদ্যালয়ের গন রায়, সংযুক্তি হিসেবে দেয়।
( প্রগতিশীল ছাত্র জোট, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর কর্মীদের গত চার দিনের সংগ্রহকৃত প্রায় ৪৫০০ গন স্বাক্ষর)

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে বিভাগের উন্নয়ন ফির নামে যে টাকা নেওয়া হয় তা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর সাথে সংগতিহীন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল বাজেটে এই অর্থ যুক্ত হয় না। বিশ্ববিদ্যালয় অর্থ কমিটির প্রতিবেদনেও এই অর্থের কোন জবাবদিহিতা থাকে না। বিভাগ উন্নয়নের নামে যে অর্থ বিভাগগুলো নেয় তার স্বচ্ছতা নিয়ে অনেক প্রশ্ন রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা এই পরিস্থিতির নিরসন চায়।

স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক শ্রেণীতে এ বছর ১৮৮৯ জন শিক্ষার্থী ভর্তি নেবে। বিভাগ উন্নয়ন ফি বাবদ তাঁদের কাছ সাত হাজার টাকা হারে মোট এক কোটি ৩২ লাখ টাকা আদায় হবে। এদিকে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ১৬ কোটি ১৪ লাখ ৭৩ হাজার টাকার ভর্তি পরীক্ষার ফরম বিক্রি করেছে। স্মারকলিপিতে এই টাকা থেকে বিভাগগুলোকে এক কোটি ৩২ লাখ টাকা প্রদান প্রস্তাব দেওয়া হয়।

এছাড়াও উল্লেখ করা হয় যে " ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে বিভাগের প্রয়োজনীয় অর্থ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকেই দিতে হবে এবং শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনরূপ অর্থ আদায় করা যাবে না। এর অন্যথায় হলে শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে প্রগতিশীল ছাত্র জোট কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করে হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নাই।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / প্রতিনিধি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা