manobbondon

নতুন লঞ্চের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ভোলার চরফ্যাসন মনপুরা, দৌলতখান ও নোয়াখালীর হাতিয়ার লোকজন। একইসঙ্গে পর্যটননির্ভর ওই সব রুটে চলাচলকারী একটি মাত্র লঞ্চ কোম্পানি ‘টিপু কোম্পানির’ হয়রানি, নির্যাতন ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমেরও প্রতিবাদ জানানো হয় মানববন্ধনে। গতকাল সকালে জাতীয় প্রেস কাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে ওই সব এলাকার ব্যবসায়ী, ছাত্র, সাধারণ মানুষ এ দাবি জানান।

এতে চরফ্যাসন, মনপুরা, দৌলতখাঁ ও হাতিয়ার কয়েক শ’ নারী-পুরুষ অংশ নেন। মানববন্ধনে উপস্থিত জনতার মধ্যে-চরফ্যাসনের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাকসুদ মালতিয়া, চরফ্যাসন কলেজের প্রভাষক হযরত আলী, কবি ও সাংবাদিক কালাম ফয়েজী, হাতিয়ার ‘তিলোত্তমা’ নামক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পরিচালক ফৌজিয়া আকতার সোহেলী, বোরহানউদ্দিনের ব্যবসায়ী শেখ বোরহান উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বক্তরা বলেন, ঢাকার সঙ্গে চরফ্যাসন, মনপুরা, দৌলতখাঁ ও হাতিয়ার একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম লঞ্চ। বেঁচে থাকার তাগিদে এসব নৌরুটে চলাচলকারী একটি মাত্র কোম্পানির ‘টিপু ও ফারহান’ নামক লঞ্চে প্রতিদিনই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীদের চলাচল করতে হচ্ছে। টিপু কোম্পানির আধিপত্য ও স্বেচ্ছাচারিতার কারণে দুর্ঘটনায় প্রাণহানি থেকে শুরু করে অনেকে পঙ্গুত্বের জীবনযাপন করছেন। সর্বশেষ কোরবানি ঈদের পর গত ১৫ সেপ্টেম্বর মেঘনা নদীর ভোলার বাংলাবাজার প্রান্তে অতিরিক্ত যাত্রী বহনকারী এমভি ফারহান লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার ডুবিতে আরিফ নামে এক যুবক নিহত হন। টিপু-ফারহান লঞ্চে এ ধরনের দুর্ঘটনা প্রায়ই ঘটছে।
ব্যবসায়ী শেখ বোরহানউদ্দিন বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে টিপু কোম্পানির লঞ্চে থাকা সন্ত্রাসীর গুলিতে হামলার মুখে পড়ে হেলাল উদ্দিন নামে বোরহান উদ্দিন উপজেলার বড় মানিকার এক বাসিন্দা পঙ্গুত্ব নিয়ে জীবন-যাপন করছেন। চরফ্যাসন, মনপুরা, দৌলতখান, বোরহান উদ্দিন ও হাতিয়ায় টিপু কোম্পানির অত্যাচারে আহত হয়েছেন এমন অনেক খুঁজে পাওয়া যাবে। এ অবস্থায় টিপু কোম্পানির হয়রানি-নির্যাতন, নৌপথে কৃত্রিম ঝুঁকি ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের অবসান চেয়ে নতুন কোম্পানির লঞ্চ দাবি করেন তারা। 



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / আ/ম

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা