rekha

চকরিয়ার ইয়াবা সুন্দরী রেখার অবৈধ ব্যবসার রাজত্ব এখন কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও বাংলাদেশে নয়। ব্যবসার প্রসারে রেখা এখন ঘন ঘন বিদেশেও পাড়ি জমাচ্ছে। কক্সবাজার জেলার চকরিয়ার উত্তর লোটানি গ্রামের এক নিম্ন বৃত্ত পরিবারে জন্ম শিমুল আক্তার রেখার। সে প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন ও কক্সবাজার হোটেল মোটেল এলাকায় বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। রেখা এখন একা নই, এলাকার সহজ সরল মেয়েদের টাকার লোভ দেখিয়ে জড়িয়ে ফেলছে ইয়াবা ও পতিতা ব্যাবসায়।ইয়াবা ব্যাবসার পাশাপাশি বর্তমানে সে এক জন পতিতাদের গড়ফাদার। ব্যাবসার খুটি শক্ত করতে রেখা কৌশলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে ঘনিষ্ট আত্মিয় নুরুল আজিমকে। রেখার বেপরোয়া চলাফেরা লক্ষ করার পরও সে তাকে সুন্দর জীবনে ফিরে আনার চেষ্টা করে। তাদের অনাস্থার জীবনে একটি সন্তানেরও জন্ম হয়।

অপকর্মে বাধাঁ দেওয়ায় রেখা ও তার পরিবার নুরুল আজিমকে মারধরেরও ঘটনা ঘটায়। বেপরোয়ার সীমা অতিক্রমে এক পযার্যে রেখা নুরুল আজিমের দাম্পত্য জীবনের ইতি ঘটে। সংসার ভাঙ্গার পর রেখা শুরু করে প্রকাশ্যে দেহ ও ইয়াবা ব্যবসা। কক্সবাজার, চট্টগ্রামের বিভিন্ন হোটেল মোটেল এলাকায় ব্যবসার প্রসারে সখ্যতা গড়ে তুলে সন্ত্রসীর ঘটফাদার, নানা পেশার উচ্চ বর্ণের লোক ও প্রশাসনের কিছু লোকের সাথে। একপর্যায়ে সে পাড়ি জমায় কুমিল্লায়। কুমিল্লার বিভিন্ন হোটেলে দীর্ষ ৩/৪ বছর অবস্থানরত অবস্থায় সে একটি হোটেলে সপ্তাহে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। কুমিল্লা থেকে সে চোলাই মদ সহ নানা মাদক দ্রব্য ও পতিতা চাপলাই করতো চট্টগ্রামে। বিগত ৩ বছর পূর্বে চট্টগ্রাম শহরের দালাল চক্রের সহায়তায় রেখা বেশ কিছু সুন্দরী মেয়েকে নিয়ে পাড়ি দেয় দুবাই, ওমান, কাতার, সৌদিয়া সহ কয়েকটা দেশে।

সেখান থেকে দেশী বিদেশী বিভিন্ন লোকের সাথে মোবাইলে প্রেমের অভিনয় করে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে চলতি বছর দেশে ফিরে আসে। উল্লেখ্য রেখা আবারও বিদেশে যাওয়ার পায়তারা করছে। দ্বিতীয় স্বামী থাকলেও রেখা বিভিন্ন যুবককে হোটেলে নিয়ে তালাক দেওয়া ১ম স্বামী নুরুল আজিমের নাম পরিচয়ে রাত্রি যাপন করে। সে সম্প্রতি চট্টগ্রামের একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডুপ্লিকেট আই.ডি. কার্ড বাহির করে যাহার নাম্বার- ২২১১৬৫৫৯৯২৮১৩ এবং এরই সাথে ডুপ্লিকেট পার্সপোর্ট বানানোর জন্য মরিয়া হইয়া উঠে এবং একটি বিশেষ মহলের দ্বারা পার্সপোট তৈরীর প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানা যায়। এই প্রতারকের খপ্পরে পড়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ২/৩ জন লোক জানান, তাদের থেকে এর আগেও সে বিয়ে করার লোভ দেখিয়ে তার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রাদিসহ লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। রেখার খপ্পরে পড়ে স্বর্বশান্ত যুবকগুলোর অনেকে এখন বেচে নেয় মাদক সেবনের পথ। তারা এই মাদক ও পতিতা ব্যাবসায়ী প্রতারক রেখা কে গ্রেফতার করার দাবী জানান। তাই প্রশাসনের সুদৃষ্টি থাকলে এই ইয়াবা সুন্দরী রেখা নারী পাচার করতে বিদেশে পাড়ি দিতে পারবে না। রাক্ষা হবে কিছু গ্রামের সহজ সরল মেয়ের জীবন।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / আ/ম

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা