CITY RAB-3 PICTURE

রাজধানীর মতিঝিল থেকে মানব পাচারকারী চক্রের ৫ সক্রিয় সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব ॥ বিপুল পরিমান আর্šÍজাতিক মুদ্রাসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি জব্দ

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন সাইমন এয়ার ট্রাভেলসে গোপনে অভিযান চালিয়ে মানব পাচারকারী চক্রের সাথে জড়িত ৫ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে এলিট ফোস (র‌্যাব-৩) এর একটি দল। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা তল্লাশী চালিয়ে বিদেশে যাওয়ার বিপুল পরিমান জাল কাগজপত্র, ৪৮টি পাসপোর্ট, ৪৫০ ইউএস ডলার, ৪১ হাজার টাকা, ৭ লাখ ৮৭ হাজার ৬০০ ইন্দোনেশিয়ান রুপি, ৯৫ মালয়েশিয়ান রিংগিত, ইন্ডিয়ান রুপি, মালয়েশিয়ার সিম কার্ড, বিএমইটি কার্ড সহ বিপুল পরিমান সরঞ্জমাদি উদ্ধার করে।

শনিবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে মতিঝিল থানাধীন ৯৯, করিম চেম্বার্সের ৫ম তলায় সাইমন এয়ার ট্রাভেলস থেকে তাদেরকে আটক করে র‌্যাব-৩।

এলিট ফোস (র‌্যাবের) আইন ও গনমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) সিনিয়র এএসপি মো: মিজানুর রহমান ভুঁইয়া আজ রোববার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

র‌্যাব-৩ এর স্টাফ অফিসার (অপস) এএসপি বিনা রানী দাস আজ জানান, র‌্যাব-৩ এর একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজধানীতে একটি সংঘবদ্ধ মানব পাচারকারী চক্র বাংলাদেশ হতে উচ্চ বেতনে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে ২৫ জন বাংলাদেশী নারী পুরুষকে অবৈধ পথে মালয়েশিয়ায় পাচার করেছে। রাজধানীতে একটি সংঘবদ্ধ মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যরা চলতি বছরের আগষ্ট মাসে ৭ জন নারী ও ১৮ জন পুরুষকে ঢাকা থেকে বাসযোগে বেনাপোল হয়ে কলকাতায় নেয়। পরবতীতে পাচারকারী দলটি তাদেরকে কলকাতায় কয়েকদিন অবস্থান করার পরে ট্রেন যোগে উড়িষ্যায় পাঠায়। উড়িষ্যা বিজু পাটনায়েক ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট থেকে বিমানযোগে তাদেরকে ইন্দোনেশিয়া নিয়ে যায়। ইন্দোনোশিয়ায় ৫/৭ দিন অবস্থান করার পর মোট ২৫ জন নারী পুরুষকে সাগর পথে মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে প্রবেশ করায়।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ থেকে পাচার হওয়া নারী-পুরুষরা বর্তমানে চরমভাবে নির্যাতিত ও নিপীড়িত হয়ে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছে। পরবতীতে র‌্যাব-৩ এর একটি দল শনিবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন ৯৯, করিম চেম্বার্সের ৫ম তলায় সাইমন এয়ার ট্রাভেলসে গোপনে অভিযান চালিয়ে মানব পাচারকারী চক্রের ৫ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে । তারা হলেন-সাইমন এয়ার ট্রাভেলসের সত্ত্বাধিকারী মোঃ কুদ্দুস ব্যাপারী (৫৫), পিতা-গনি ব্যাপারী, মাতা-সাফিয়া আকতার, সাং-বিলাসপুর, মুলাই বেপারী কান্দি, থানা-জাজিরা, জেলা-শরিয়তপুর, মোঃ রবিউল ইসলাম (৩১), পিতা-মোঃ জাকির হোসেন, মাতা-মোছাঃ সেতা বেগম, সাং-সাগর ফেলা, থানা-তির্তাস, জেলা-কুমিল্লা, মোঃ জাকির হোসেন (৪১), পিতা-মৃতঃ মোঃ আসাদ, মাতা-শাহনারা বেগম, সাং-তালতলি, থানা-মতলব উত্তর, জেলা-চাঁদপুর, মোঃ মিন্টু (৩৯), পিতা-রফিকুল ইসলাম, মাতা-রানু বেগম, সাং-শিবপুর, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, মোঃ আরিফুল ইসলাম (২৮), পিতা-মোঃ শাহজাহান মিয়া, মাতা-এলিজ বেগম, সাং-দাড়িয়াপুর, থানা-সখিপুর, জেলা-টাঙ্গাইল।

র‌্যাব-৩ অফিস সুত্রে জানা যায়,মানবপাচারকারী সংঘবদ্ধ চক্রটি উক্ত ট্রাভেল এজেন্সীর মাধ্যমে জাল কাগজপত্র তৈরীর মাধ্যমে তাদেরকে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় প্রেরন করা হয়েছে। এ সময় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সারওয়ার আলম অবৈধভাবে বিদেশ প্রেরনের জন্য জাল কাগজপত্র তৈরীর দায়ে তাদেরকে বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসন আইনের ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকাা আর্থিক জরিমানা শাস্তি প্রদান করেন। পরবর্তীতে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্দেশে সাইমন এয়ার ট্রাভেলস প্রতিষ্ঠানটিকে সিলগালা করে দেয়া হয়। এবিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব-৩।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / নিজস্ব প্রতিবেদক

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা