prime minister of bangladesh uttaranews24

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করবো। ইতোমধ্যে ৪টি করেছি। বরিশাল অঞ্চলেও একটি হবে। কোনও মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তর করবো না। বিশ্ববিদ্যালয় হবে সম্পূর্ণ আলাদা। বিশ্ববিদ্যালয় হবে গবেষণামূলক।

সোমবার বিকেলে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে হবে উচ্চতর ডিগ্রি। বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়কে আমরা সেভাবে করে দিচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ডাক্তার-নার্স সবই আমরা নিয়োগ দিচ্ছি। কিন্তু দুঃখজনক যে উপজেলায় ডাক্তার থাকে না। যেখানে ১০ জন থাকার কথা সেখানে ১ জন থাকছে। আমরা শুধু প্রতিষ্ঠান করে যাবো, সেগুলো অবহেলিত থাকবে এটা কিন্তু হতে পারে না।

তিনি আরো বলেন, আমরা উপজেলাগুলো (স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স) ৩১ থেকে ৫০ বেড করে দিচ্ছি। বিভিন্ন জেলা হাসপাতালে যেখানে ১শ বেড ছিল প্রথমবার ক্ষমতায় এসে ২৫০ বেড করেছি। প্রতিটি এলাকার জনসংখ্যা অনুসারে আমরা বেড সংখ্যা বৃদ্ধি করছি। অনেক এলাকা রয়েছে যেখানে অপারেশন করার দরকার, সেখানে ডাক্তার নেই, সার্জারি করার লোক নেই, সহকারী নেই, নার্স নেই।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের চাহিদা মোতাবেক মেডিকেল কলেজ করে দিচ্ছি। সরকারি, বেসরকারিভাবে বিভিন্ন ইনস্টিটিউট করে দিচ্ছি। আমরা সবই করে দিচ্ছি। মানুষের সেবা দেয়াটা আপনাদের দায়িত্ব। আশা করি মানুষ এ সেবাটা পাবে।

তিনি আরও বলেন, সরকার স্বাস্থ্যখাতে নতুন নতুন কর্মসূচি গ্রহণ এবং সেগুলো বাস্তবায়ন করছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় চাহিদা মোতাবেক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল স্থাপন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক করে মানুষের ঘরের পাশাপাশি আমরা চিকিৎসা সেবা নিয়ে যাচ্ছি। চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছি। আজকে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। বাংলাদেশ এখন শুধু ধান নয়, ফসল, ফলফলাদি ও মৎস উৎপাদন করছে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছে সরকার। জিনিস-পত্রের দাম স্থিতিশীল করে মাথাপিছু আয় বাড়িয়েছি। দক্ষিণ বিভাগ আর অবহেলিত নয়। বরিশাল যে পায়রা বন্দর গড়ে তুলছি তা ভবিষ্যতে গভীর সমুদ্র বন্দর হবে। ইতোমধ্যে সেখানে ১৩শ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাজ প্রায় সমাপ্তির পথে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা রূপপুরে পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছি। বরিশাল অঞ্চলের মানুষের উন্নয়নে কাজ করছে সরকার। বরিশালের কয়েকটি দ্বীপ অঞ্চল সার্ভে করেছি। পরবর্তীতে এ অঞ্চলে ২৪শ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। বরিশাল অঞ্চলে হবে দেশের দ্বিতীয় বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / জি/তা

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা