DCCI

গেল বছরে গ্যাসের দাম বাড়ানোর পর এখন আবার গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ব্যাহত হবে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

তাই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারাকে সমুন্নত রাখতে এ সিদ্ধান্ত পুনঃবিবেচনার দাবি জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের এ সংগঠন। বৃহস্পতিবার ডিসিসিআইয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত বছরের সেপ্টেম্বরে গ্যাসের দাম গড়ে ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিল। এ অবস্থায় এখন আবার গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে দেশের উদ্যোক্তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। অথচ সম্প্রতি গড়ে ৮৮ শতাংশ গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।
তারমধ্যে সর্বোচ্চ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব রয়েছে গৃহস্থালিতে ব্যবহূত গ্যাসে। এ খাতে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব ১৪০ শতাংশ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩০ শতাংশ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে ক্যাপটিভ বিদ্যুকেন্দ্রে ব্যবহূত গ্যাসের।

আর শিল্পে ব্যবহূত গ্যাসের দাম ৬২ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব রয়েছে। এ খাতে ব্যবহূত গ্যাসের দাম বিদ্যমান ৬ টাকা ৭৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১০ টাকা ৯৫ পয়সা প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া সার উত্পাদনে ব্যবহূত গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব এসেছে ৭১ শতাংশ, যার ফলে কৃষি খাতের পণ্য উত্পাদনে ব্যয় বৃদ্ধি পাবে।

ডিসিসিআই মনে করে, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ব্যবসা-বাণিজ্যে নানামুখী নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। ব্যবসায়ের ব্যয় বেড়ে যাবে এবং রপ্তানি বাধাগ্রস্ত হবে। গ্যাসের দাম বাড়ার কারণে মূল্যস্ফীতি ডাবল ডিজিটে উঠে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যা আমাদের অর্থনীতির জন্য মারাত্মক হুমকির কারণ হতে পারে।

ঢাকা চেম্বার মনে করে, ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতির নানামুখী কর্মকা্ল মেটানোর জন্য শিল্প-কারখানাগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করা যায়নি, তদুপরি সার্বিকভাবে এ মূল্য বৃদ্ধির ফলে ব্যবসায়ের ব্যয় আরোও বাড়বে।

বাংলাদেশের অর্থনীতির ধারাকে গতিশীল রাখতে সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ (এফডিআই) আকর্ষণ করার ক্ষেত্রেও গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা এ দেশে বিনিয়োগে নিরুত্সাহিত হবে।

ক্যাপটিভ বিদ্যুত্ ব্যবহারের ফলে আমাদের টেক্সটাইল, তৈরী পোশাক সহ অন্যান্য খাত ইতোমধ্যে প্রচণ্ড চাপের মধ্যে রয়েছে, তথাপি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির কারণে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি পেলে এ খাতগুলোর অগ্রগতির ধারা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / স স

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা