bd-bank

সিকিউরড ট্রানজেকশন (অস্থাবর সম্পত্তি) আইন নিয়ে মতামত নিচ্ছে আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা- বাংলাদেশ ব্যাংক। এরই মধ্যে আইনটির খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে ।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, সিকিউরড ট্রানজেকশন আইনের খসড়ার ব্যাপারে যারা মতামত দিতে চান তাদেরকে চলতি বছরের ৩ ডিসেম্বর থেকে পরের ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক বরাবর একটি হার্ডকপি এবং একই বিভাগের যুগ্ম পরিচালক ও ফোকাল পয়েন্ট পয়েন্ট বরাবর একটি সফট কপি প্রেরণ করতে হবে।

সিকিউরড ট্রানজেকশন (অস্থাবর সম্পত্তি) আইনের সংজ্ঞা এবং ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে- ‘সংযোজন’ অর্থ সেই সকল পণ্য যাহা অন্যান্য পণ্যের সঙ্গে সংস্থাপিত অথবা সংযোজিত হইয়াছে; ‘হিসাব’ অর্থ কোন আর্থিক দায়, যাহার সাক্ষ্য প্রমাণ কোন সিকিউরিটি বা দলিল দ্বারা রাখা হয়নি, যাহা কার্যসম্পাদন দ্বারা অর্জিত হোক বা না হোক; ‘হিসাব দেনাদার’ অর্থ এমন ব্যক্তি যিনি কোন স্পর্শাতীত সম্পত্তির অধীনে দায়বদ্ধ, যাহার মধ্যে হিসাব অন্তর্ভুক্ত; ‘খেলাপ’ অর্থ (অ) সিকিউরড দায় যখন পাওনা হইবে তখন তাহা পরিশোধ কিংবা অন্যরূপ কার্যসম্পাদনে ব্যর্থ হওয়া; (আ) কোন একক ঘটনা কিংবা বহুসংখ্যক সংঘটন যাহার ফলে সিকিউরিটি চুক্তির শর্তানুসারে সিকিউরিটি অধিকার বলবৎযোগ্য হয়; ‘আর্থিক বিবৃতি’ বলিতে প্রারম্ভিক বিবৃতি, সংশোধনী বিবৃতি অথবা বাতিলকরণ বিবৃতি অন্তর্ভুক্ত হইবে যাহা এই আইনের বিধি ও প্রবিধানের অধীনে শর্তযুক্ত নির্ধারিত ফরম অনুযায়ী রেজিস্ট্রেশন করা আবশ্যক অথবা অনুমোদিত হয়; ‘সংযুতি’ অর্থ এমন পণ্যসামগ্রী যাহা কোন বিশেষ স্থাবর সম্পত্তির সঙ্গে এমনভাবে সম্পৃক্ত হইয়াছে যাহার ফলে উহার উপর স্থাবর সম্পত্তি সংক্রান্ত আইনের অধীনে কোন অধিকার অথবা স্বার্থ উদ্ভূত হয়, কিন্তু ভবন উপকরণ উহার অন্তর্ভুক্ত হইবে না; ‘পারস্পরিক বিনিময়যোগ্য জামানত’ অর্থ এমন প্রকৃতি বা ধরনের পণ্য দ্রব্য যাহা অনুরূপ প্রকৃতি বা ধরনের অন্য কোন পণ্য দ্বারা সহজে সামগ্রিক বা আংশিকভাবে বিনিময় কিংবা প্রতিস্থাপন করা যায়; ‘ভবিষ্যৎ অগ্রিম’ অর্থ সিকিউরিটি চুক্তি দ্বারা সিকিউরড কোন অগ্রিম অর্থ ঋণ অথবা অন্যান্য মূল্য, উক্ত অগ্রিম কোন প্রতিশ্রুতির অধীনে করা হোক বা না হোক; ‘ভবিষ্যৎ সম্পত্তি’ অর্থ কোন অস্থাবর সম্পত্তি যাহার বর্তমানে অস্তিত্ব নেই অথবা জামিনদারের যাহাতে কোন অধিকার নেই, অথবা যাহা সিকিউরিটি চুক্তি সমাপ্ত হইবার সময় ঋণদায়গ্রস্ত করিবার ক্ষমতা থাকে না; ‘পণ্য’ অর্থ স্বত্ব দলিল, দলিলাদি এবং অর্থ ব্যতীত কোন অস্থাবর সম্পত্তি, এবং যাহার মধ্যে সংযুতি, বাড়ন্ত ফসলাদি, অজাত পশু শাবক, কর্তন উপযোগী গাছ এবং উত্তোলনযোগ্য খনিজ উপাদান অন্তর্ভুক্ত হইবে।

 



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / গাজী/24

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা